রবিবার, ০৪ Jun ২০২৩, ০৬:৫৫ পূর্বাহ্ন
Menu

তামিলনাড়ুর পর এবার পশ্চিমবঙ্গে নিষিদ্ধ হলো ‘দ্য কেরালা স্টোরি’

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ :  May 8, 20233:49 pm

আলোচনায় থাকা ‘দ্য কেরালা স্টোরি’ সিনেমাটির প্রদর্শন নিষিদ্ধ করেছে পশ্চিমবঙ্গ। রাজ্যের মুখমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কার্যালয় থেকে এই মর্মে একটি নির্দেশ জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, শান্তি-সৌহার্দ্য বজায় রাখতে রাজ্যে ‘দ্য কেরালা স্টোরি’ নিষিদ্ধ করা হল। এই সিনেমায় যে সব দৃশ্য দেখানো হয়েছে তা রাজ্যের শান্তিশৃঙ্খলার পক্ষে বিপজ্জনক হতে পারে। এই নিষেধাজ্ঞা শুধু কলকাতা নয়, পশ্চিমবঙ্গের সব জেলাতেই সমানভাবে কার্যকর হবে। নির্দেশে আর আরও বলা হয়েছে, ছবিতে যা দেখানো হয়েছে, তা সম্প্রীতির জন্য হুমকি হতে পারে। পশ্চিমবঙ্গের আগে ভারতের তামিলনাড়ুতেও এই ছবিটি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। কেরালা স্টোরির উপর নিষেধাজ্ঞা জারির আগে মুখ্যমন্ত্রী নবান্নে এক বৈঠকে ছবিটির সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, রাজনৈতিক দলগুলো আগুন নিয়ে খেলছে। তারা জাত-ধর্ম-বর্ণ নিয়ে ভেদাভেদ তৈরির চেষ্টা করছে। ‘দ্য কেরালা স্টোরি’ এক অসত্য এবং বিকৃত কাহিনিী। ‘দ্য কেরালা স্টোরি’তে হিন্দু এবং খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী ৩২ হাজার নারীকে ধর্মান্তরণের কথা বলা হয়েছে। যা মিথ্যা বলে দাবি করেছো কেরালার বাম সরকার। পশ্চিমবঙ্গে সিনেমাটি নিষিদ্ধ করায় রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী মমতার তুমুল সমালোচনা করেছেন। মুখ্যমন্ত্রী জঙ্গিদের প্রতি সহানুভূতিশীল কি না সেই প্রশ্নই রাখেন তিনি। মুক্তির পর তোলপাড় ফেলে দিয়েছে পরিচালক সুদীপ্ত সেনের ‘দ্য কেরালা স্টোরি’। কেউ ছবিটিকে সমর্থন করছেন, কেউ এর বিপক্ষে সরব হয়েছেন। ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্রের নাম শালিনী উন্নিকৃষ্ণণ। হিন্দু এই তরুণী ভাগ্যের ফেরে হয়ে উঠেন ফাতিমা। ‘ফাঁদ’ পেতে শালিনীকে ফাতিমা করে তোলার কাহিনী বলেছেন পরিচালক সুদীপ্ত। শুধু হিন্দু থেকে মুসলমান হওয়াই নয়, ফাতিমাকে সিরিয়ার জঙ্গি দলে যোগ দিতে বাধ্য করা হয়। ধর্মান্তরিত নারীর অসহায় জীবন সংগ্রামকে কেন্দ্র করেই আবর্তিত হয়েছে ‘দ্য কেরালা স্টোরি’।