মঙ্গলবার, ০৬ Jun ২০২৩, ০৬:৫৫ পূর্বাহ্ন
Menu

আসামে হবু বরকে গ্রেপ্তার করা সেই পুলিশ সদস্য গ্রেপ্তার

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ :  June 6, 20223:40 am

চলতি বছররের মে মাসে প্রতারণার অভিযোগে হবু বরকে গ্রেপ্তার করে আলোচনায় আসা ভারতের আসাম প্রদেশের পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) জুনমনি রাভা এবার নিজেই দুর্নীতির অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছেন। শনিবার (৪ জুন) আসাম পুলিশ হবু স্বামীর দায়ে করা দুর্নীতির মামলায় জুনমনিকে গ্রেপ্তার করেছে। রোববার এনডিভিটির এক প্রতিবেদনে পুলিশের বরাত দিয়ে এনডিটিভি বলছে, আসামের নাগাঁও জেলা পুলিশের উপপরিদর্শক রাভাকে দু’দিন জিজ্ঞাসাবাদের পর গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মাজুলি জেলার একটি আদালত তাকে ১৪ দিনের বিচার বিভাগীয় হেফাজতে পাঠিয়েছেন। দুই ঠিকাদার পুলিশের কাছে করা অভিযোগে বলেছেন, তারা রাভার হবু বর রানা পোগাগের সাথে একটি আর্থিক চুক্তি করেছিলেন। মাজুলি জেলায় কর্মরত থাকাকালীন তাদের সাথে রাবাকে পরিচয় করিয়ে দেন পোগাগ। ঠিকাদাররা বলেছেন, তারা প্রতারিত হয়েছেন। এর আগে অয়েল ও ন্যাচারাল গ্যাস করপোরেশনে (ওএনজিসি) চাকরির প্রতিশ্রুতি দিয়ে কয়েকজনের সাথে পোগাগ আর্থিক প্রতারণা করেছেন বলে এফআইআর দায়ের করেছিলেন রাভা। পরে প্রতারণার অভিযোগে পোগাগকে গ্রেপ্তারও করেন তিনি। বর্তমানে তিনি মাজুলি জেলা কারাগারে রয়েছেন। গত বছরের অক্টোবরে রানা পোগাগ ও জুনমনি রাভার বাগদান হয়। বাগদানের পর প্রতারণার অভিযোগে হবু স্বামীকে গ্রেপ্তার করায় বলিউডের সিনেমা সিংগাম ও দাবাংয়ের মতো করে তাকে ‘লেডি সিংগাম’ বা ‘দাবাং কপ’ হিসাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশংসা করা হয়।পরবর্তীতে রাভার বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে চাঁদাবাজির অভিযোগ আনা হয়। এতে বলা হয়, মাজুলি জেলায় দায়িত্বরত অবস্থায় হবু বর পোগাগের পক্ষে বিভিন্ন জনের কাছ থেকে অর্থ সংগ্রহ করেন রাভা। এই অভিযোগের পর মাজুলি জেলা পুলিশ রাভার বিরুদ্ধে তদন্ত শুরুর নির্দেশ দেয়। তদন্তে দুর্নীতিতে জড়িত থাকার অভিযোগের প্রমাণ পাওয়ার পর রাভাকে শনিবার গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তার আগে তাকে দু’দিন ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। রাভাকে মাজুলি জেলা কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। আগামী নভেম্বরে হবু বর রানা পোগাগের সাথে বিয়ের পিঁড়িতে বসার কথা ছিল পুলিশ কর্মকর্তা রাভার। চলতি বছরের জানুয়ারিতে মাজুলি জেলার বিধায়ক অমিয় কুমার ভূঁইয়ার সাথে রাভার ফোনালাপের একটি অডিও ফাঁস হয়ে যাওয়ার পর রাজ্যজুড়ে বিতর্কের ঝড় শুরু হয়। নিজ নির্বাচনী এলাকার জনগণকে হয়রানি করছেন বলে ফোনালাপে রাভার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন বিধায়ক অমিয় কুমার। এই নিয়ে দু’জনকে ফোনে ব্যাপক তর্ক-বিতর্ক করতে শোনা যায়। অডিও ফাঁসের এই ঘটনা আসামের রাজনীতিকদের মধ্যে প্রচণ্ড ক্ষোভ সৃষ্টি করে। পরে আসামের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত বিশ্ব শর্মা বলেন, একজন নির্বাচিত প্রতিনিধিকে অবশ্যই যথাযথ সম্মান দিতে হবে।